আওয়ামীলীগের ভুঁইফোড় নেতারা লাইমলাইটে আসার জন্যই তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের – সাগর সিদ্দিকী

নারায়ণগঞ্জ নিউজ ২৪ ডট কম: বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে শেখ মজিবুর রহমানের নামে কটূক্তি ও রাষ্ট্রদ্রোহীতার অভিযোগ এনে আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য ও জয়বাংলা মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগের আহ্বায়ক আকরাম হোসেন বাদলের দায়ের করা মামলায় নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ লিটন রহমানের আদালত থেকে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদল নেতা মো: সাগর সিদ্দিকী।

গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের মেধাবী এই ছাত্রনেতা জানান, ” আওয়ামীলীগের কিছু অতিউৎসাহী ভুইফোর নেতা নিজেদেরকে শো-অফ ও সস্তায় লাইমলাইটে আনার অপচেষ্টায় আগামীর বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা দেশনায়ক জনাব তারেক রহমানের নামে এই হাস্যকর মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে। আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। সেই সাথে বলতে চাই, এমন অদ্ভুতুড়ে মামলা দায়েরের মাধ্যমে আওয়ামীলীগ নেতাদের সাময়িক মনস্তাত্ত্বিক শান্তি মিললেও, দেশনায়ক জনাব তারেক রহমানের ক্ষুরধার যুক্তি দিয়ে বক্তব্য উপস্থাপন দমিয়ে রাখা সম্ভব নয়। যারা তারেক রহমানের স্পষ্টবাদী বক্তব্যে মানহানি ও রাষ্ট্রদ্রোহীতা খুজেন এবং সরকারের আজ্ঞাবাহ আদালত অযৌক্তিকভাবে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করে আমি তাদের স্পষ্টভাবে বলে দিতে চাই তারেক রহমান এসব হাস্যকর মিথ্যা মামলাকে ভয় পায়না। অচিরেই তার চিকিৎসা শেষ করে বীরের বেশেই গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনে অংশ নেওয়ার জন্য দেশে ফিরে আসবেন এবং তার বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা আইনের মাধ্যমে মোকাবেলা করবেন।

আমি মনে করি তারেক রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করার জন্যই একের পর এক মিথ্যা মামলার সাজানো রায় দিয়ে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করছে অবৈধ সরকারের এসব চাটুকার ভুইফোর নেতারা।

সাগর সিদ্দীকি আরও উল্লেখ করে বলেন, অবিলম্বে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নামে নারায়ণগঞ্জ আদালতে দায়েরকৃত মানহানি ও রাষ্ট্রদোহী মামালা প্রত্যাহারের জোরালো দাবি জানাচ্ছি।”

প্রসঙ্গত, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটাক্ষ এবং স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃত করে মানহানিকর কথাবার্তার অভিযোগ এনে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ তিনজনের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ আদালতে মামলা দায়ের হওয়ার পর গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি হয়েছে।

গত সোমবার দুপুরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (ক) অঞ্চল আমলী আদালতে আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য ও জয়বাংলা মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগের আহ্বায়ক আকরাম হোসেন বাদল মামলাটি দায়ের করেন।

পরে এ আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মিল্টন হোসেন গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেন।

মামলার বাকি আসামীরা হলেন, যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি শায়েস্তা চৌধুরী কুদ্দুস ও সাধারন সম্পাদক কাওছার এম আহম্মেদ।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment