এসপি হারুণের ধারাবাহিক চমক ; সিদ্ধিরগঞ্জে ১০০ কোটি টাকার নকল পণ্য জব্দ

নারায়ণগঞ্জ নিউজ ২৪ ডট কম: নগদ সোয়া কোটি টাকা ও ইয়াবা উদ্ধারের ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই প্রায় ১০০ কোটি টাকা মূল্যের নকল প্রসাধনী ও নকল ইলেকট্রনিক পণ্য জব্দ করেছে পুলিশ। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার শিমরাইল এলাকায় মুনস্টার মার্কেটিং প্রাইভেট লিমিটেড ও ম্যাক্স ইলেকট্রো ইন্ডাস্ট্রিজ নামে দুই প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে এ সকল নকল সামগ্রী জব্দ করেছে পুলিশ।

বুধবার (২ অক্টোবর) রাত ১০টা থেকে নারায়ণঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদের নেতৃত্বে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) একটি দল এই অভিযান পরিচালনা করছে।

মালিক বেলায়েত হোসোন পলাতক থাকলেও স্টাফসহ আটজনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃত ব্যক্তিরা হলেন- অহিদুল ইসলাম (৩৫), সিরাজুম ইসরাম (১৮), সোহাগ (২৪), আমিনুল ইসলাম (৩২), রাজীব (১৮), মাইনুল ইসলাম (৩২), মেহেদী হাসান (১৮) ও একাউন্ট অফিসার সাইফুল ইসলাম (৩৫)।

পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ জানান, ‘মুনস্টার মার্কেটিং প্রাইভেট লিমিটেড ও ম্যাক্স ইলেকট্রো ইন্ডাস্ট্রিজ নামে দুই প্রতিষ্ঠান দীর্ঘদিন ধরে নকল প্রসাধনী ও ইলেকট্রনিক পণ্য তৈরি করে আসছিল। ধানমন্ডির বাসিন্দা বেলায়েত হোসেন নামে এক ব্যক্তি সিদ্ধিরগঞ্জের একটি জায়গায় নকল প্রসাধনী তৈরি করেন এবং বাজারজাত করেন ৷ আমরা খবর পাওয়ার পর রাত ১১টায় অভিযান চালাই৷ জাপান, ইন্ডিয়া, চায়না, লন্ডন, আমেরিকা, ফ্রান্সহসহ বিভিন্ন দেশের নামে ময়লা পানি, রং ও সেন্ট দিয়ে এসব বানাচ্ছিল তারা৷ কুবরা, ফগ, রয়েল, এয়ার ফ্রেশনারের মতো বিভিন্ন ব্র্যান্ডের নামে এসব তারা বাজারজাত করতো৷’

তিনি আরও বলেন, ‘পরে আরেকটি গোডাউনে গিয়ে দেখি ৬৫ ইঞ্চি, ৭০ ইঞ্চির টিভি বানাচ্ছেন তারা৷ সনি, স্যামসাং, এলজি, প্যানাসনিকসহ বিভিন্ন ব্রান্ডের টিভি ও মাইক্রো-ওভেন তৈরি করছেন৷ বিভিন্ন ব্রান্ডের নাম থাকলেও এগুলো সব ভুয়া৷ আমাদের দেশের সাধারণ মানুষ এদের দ্বারা প্রতারিত হচ্ছে৷ এ সকল প্রতারক চক্র বিশাল বড় গোডাউনে এসব তৈরি করছে এবং সরকারের বিশাল অঙ্কের ট্যাক্স ফাঁকি দিচ্ছে৷’

এসপি বলেন, ‘তারা ৫০-৬০ কোটি টাকার প্রায় লক্ষ লক্ষ টিভি তারা বানিয়েছে৷ আমরা অভিযান না চালালে এগুলা তারা বাজারজাত করতো৷ তাদের সেন্ট ও প্রসাধনীগুলো খুবই বাজে৷ মানুষ এসব ব্যবহার করলে তাদের চামড়া নষ্ট হয়ে যাবে৷ ক্যান্সার রোগ হবারও সম্ভবনা রয়েছে৷’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মানুষকে যে প্রতারিত করছে সে আইনে আমরা মামলা নেবো৷ মূল হোতাকেও আইনের আওতায় আনা হবে৷ জব্দ করা পণ্য সামগ্রীর মূল্য আনুমানিক ১০০ কোটি টাকা বলেও জানান পুলিশ সুপার।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment