সাংবাদিক এ আর মিলন সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর আহত

নারায়ণগঞ্জ নিউজ ২৪ ডট কম: সাংবাদিক এ আর মিলন সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর জখম হয়ে দুমকী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

গত ৮ এপ্রিল রোজ বুধবার ভোরে ফজর নামাজের পরে নিজ বাড়ীতে হামলার শিকার এই সাংবাদিক তার পাশের ঘড়ের বাসিন্দা জাহিদ শরীফ ও রিপন শরীফ সহ তাদের ঘরে নারায়ণগন্জ্ঞ হতে বেড়াতে আসা রিপন শরীফের শশুর বাড়ীর তিন জন মোট পাঁচজনে মিলে রড পাইপ ও ধারালো অস্র নিয়ে হামলা চালায়।

সাংবাদিকের অপরাধ ছিল পাশের ঘড়ে কয়েকদিন যাবৎ ৩/৪ যুবক ও জাহিদ রিপন মিলে আড্ডায় মশগুল। তারা সকলেই মাদকাসক্ত। দেশের ভয়াবহ পরিস্থিতি বিবেচনা করে তাদেরকে নিজ বাড়ীতে চলে যেতে ও বেপরোয়া আড্ডা দিতে নিষেধ করেণ এবং নারায়ণগঞ্জ থেকে ওই বাড়িতে তরমুজের টলারে আরও লোক আসার কথা শুনে তাদেরকে বাড়ি না আসার আনুরোধ করেন। বাড়ির মুরুব্বি হিসেবে তিনি তাদের সতর্ক করিলে বিতর্কের সৃষ্টি হয়, পরিস্থিতি খারাপ দেখে কথা না বাড়িয়ে তিনি বাসার ভিতরে চলে যান। পরের দিন সকালে ফজরের নামাজ পড়ে সামনের সিড়িতে বসেছিলেন, এমন সময়ে ৫/৬ জনে মিলে অতর্কিত হামলা চালায়। বাবার চিৎকার শুনে ছোট ছেলে সায়েম বাইরে এলে তাকেও রড ও পাইপ দিয়া এলোপাতাড়ি পেটাতে থাকে। এক পর্যায়ে সাংবাদিকের মাথায় রাম দা দিযে কুপিয়ে অজ্ঞান অবস্থায় ফেলে দিয়ে বীরদর্পে চলে যায়। বাড়ির লোকজন আক্রান্তদের নিয়ে দুমকী হাসপাতালে ভর্তি করেণ।

সাংবাদিকের মাথায় আটটি শেলাই ও নবম শ্রেণির ছাত্র সায়েম ১২ বার বমি করে, তার মাথা ও ঘারে রডের জোড়ালো আঘাত রয়েছে। দুজনই বর্তমানে পর্যাপ্ত চিকিৎসার অভাবে আশংকাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি। প্রোক্ত বিষয়ের আলোকে তাহার স্ত্রী সুলতানা লাকী দুমকী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

এআর মিলন ফতুল্লা প্রেস ক্লাবের একজন প্রতিষ্ঠাতা সদস্য।প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সহ গুরুত্বপূর্ণ একাধিক পদে একাধিকবার দ্বায়িত্ব পালন করেন।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment