অসহায়দের মাঝে দাপা ইদ্রাকপুর নাগরিক কমিটির খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

আশরাফুল ইসলাম তৌকির: করোনার প্রার্দুভাবের কারণে পুরো নারায়ণগঞ্জে চলছে লকডাউন। যার ফলে অনেকের ঘরে খাবার নেই। ফতুল্লা এলাকায় এমন কিছু মানুষ আছে যারা কিনা এ অঞ্চলের ভোটার না হওয়ায় সরকারি বা বেসরকারি ত্রাণও পাচ্ছিলেন না।

এই দুর্যোগকালীন সময়ে নিন্মমধ্যবিত্ত শ্রেণির কর্মহীন ভীষণ অসহায় মানুষগুলোর পাশে দাঁড়িয়েছে দাপা ইদ্রাকপুর নাগরিক কমিটি।

আজ শুক্রবার ফতুল্লা ৩ নং ওয়ার্ড শরীফ টেক্সটাইল মাঠ প্রাঙ্গনে তাদের সামর্থ্য অনুযায়ী ৫০০ পরিবারের কাছে খাদ্য ও সুরক্ষা সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন।

যার মধ্যে ছিল পরিবার প্রতি পাঁচ কেজি চাল, এক কেজি ডাল, এক লিটার তেল, দুই কেজি আলু ও এক কেজি লবন।

খাদ্য সামগ্রী বিতরণকালে তারা বলেন, দুর্যোগে মনুষ্যত্বের পরীক্ষা হয়। আপনার সামর্থ্য অনুযায়ী অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ান।

ইনশাআল্লাহ আমরা আমাদের সাধ্য মত চেষ্টা করেছি এবং সবসময় অসহায় মানুষের পাশে থেকে কাজ করার।সম্প্রতি মহামারী আকার ধারণ করেছে করােনা ভাইরাস নামে এক প্রাণঘাতী রােগ। এই ভাইরাস প্রতিরোধে সরকারের নির্দশনা মেনে চলতে গিয়ে কর্মহীন হয়ে সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত অসহায়, দরিদ্র পরিবারগুলো। যার পরিপ্রেক্ষিতে ওইসব অসহায় দরিদ্র পরিবারগুলোর দুঃখ-দুদর্শা লাঘবের জন্য আমরা কয়েকজন ব্যক্তিগত তহবিল থেকে দাপা ইদ্রাকপুর এলাকায় ৫০০ পরিবারের মাঝে এই খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করছি। পর্যায়ক্রমে আরো বাড়ানো হবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ফতুল্লাহ তুফানি প্রধান জামে মসজিদের ইমাম সাহেব,তুফানি প্রধান জামে মসজিদ কমিটির আহব্বায়ক ও দাপা নাগরিক কমিটির আহব্বায়ক তুষার আহমেদ মিঠু, হাজী মোঃআফসার উদ্দিন,নাগরিক কমিটির সদস্য সচিব আব্দুল বাতেন, আব্দুর রব (১), আবুল মোল্লা, আব্দুর রব (২),আব্দুর বাতেন(২), আলমগীর, ও এলাকার অন্যান্য মুরুব্বী ও ব্যক্তিবর্গ।

এসব খাদ্য সামগ্রী পেয়ে অসহায় মানুষগুলোর মুখে হাঁসি ফুটে ওঠে। তারা তাৎক্ষণিকভাবে নাগরিক কমিটিকে ধন্যবাদ জানিয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment