ডা. আব্দুন নুর তুষারের বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া থানায় এজহার

নারায়ণগঞ্জ নিউজ ২৪ ডট কম: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলাকে নিয়ে ‘কটাক্ষ’ করায় চিকিৎসক ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব আব্দুন নূর তুষারের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ছাত্রলীগ নেতা।

মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল এই মামলাটি দায়ের করেন। ডা. তুষারের পোস্ট শেয়ার করা অজ্ঞাত আরও ৬৩৬ জনকেও আসামি করা হয়েছে মামলায়।

এজহারে বলা হয়েছে, ২০ এপ্রিল ডা. আব্দুন নূর তুষার তার ফেসবুক আইডি থেকে একটি স্ট্যাটাস পোস্ট দেন। ওই স্ট্যাটাসে তিনি বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য আরটি-পিসিআর (রিভার্স ট্রান্সক্রিপ্ট পলিমারেজ চেইন রিয়্যাকশন) ল্যাব উদ্বোধনের একটি ছবি দেন। ছবিতে উপস্থিত ব্যক্তিরা সামাজিক দূরত্ব মানেননি— এ কথা ‍উল্লেখ করে বিষয়টিকে তিনি ‘ব্রাক্ষণবাড়িয়া’র সঙ্গে তুলনা করেন

এজাহারে বলা হয়য়, ডা. তুষার কোনো কারণ ছাড়াই এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলাকে ‘বি-বাড়িয়া’ হিসেবে উপস্থাপন করে আইন ভঙ্গ করেছেন।

ডা. তুষারের পোস্টে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলাকে নেতিবাচকভাবে উপস্থাপনের মাধ্যমে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার প্রায় ৩২ লাখ মানুষের মনে ক্ষোভ ও উত্তেজনা উসকে দেওয়া হয়েছে। এই পোস্টের কারণে যেকোনো সময় যেকোনো স্থানে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সন্তানদের বিবাদ ও কলহের মুখে ফেলার পথ সুগম করে দিয়েছেন ডা. তুষার।

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল বলেন, ২০১১ সালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসন প্রজ্ঞাপন দ্বারা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সংক্ষিপ্ত রূপ বি-বাড়িয়াকে আইনগতভাবে নিষিদ্ধ ও শাস্তিযোগ্য করে। আসামিদের এই অপকর্মে সমগ্র জেলাবাসীর মতো আমিও অপমানিত ও মর্মাহত হয়েছি। এই পোস্টের মাধ্যমে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ৩২ লাখ মানুষকে অপমান করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মুহাম্মদ শাহজাহান বলেন, আমরা এজহার পেয়েছি। জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে মামলাটি নথিভুক্ত করা হবে।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment