নারায়ণগঞ্জে করোনা আক্রান্ত হয়ে এক নারীর মৃত্যু, ফেলে রেখে গেল স্বামী

নারায়ণগঞ্জ নিউজ ২৪ ডট কমঃ শহরের খানপুর ৩০০ শয্যা হাসপাতালে করোনা উপসর্গ নিয়ে লিপি আক্তার (৩৫) নামে এক নারী মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (৯ মে) রাতে এ ঘটনা ঘটে। তবে মৃত নারীর মরদেহ গ্রহণ করেনি তার স্বামী কিংবা পরিবারের সদস্যরা। রোববার (১০ মে) বিকেলে কাউন্সিলর শওকত হাশেম শকু ওই নারীর লাশ গ্রহণ করেন এবং সিটি করপোরেশনের তত্বাবধায়নে দাফন সম্পন্ন করা হয়। এর সত্যতা নিশ্চিত করে নাসিক ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শওকত হাশেম শকু গণমাধ্যমকে বলেন, হাসপাতালের রেজিস্টার্ড খাতায় নিহত নারীর বিস্তারিত পরিচয় ছিল না। ওই খাতায় কেবল মাত্র মহিলার নাম লিপি আক্তার(৩৫), স্বামী সায়েম ও ঠিকানার স্থলে লেখা ছিল চাষাড়া। গত ২৮ এপ্রিল তিনি ভর্তি হয়েছিলেন।

এরপর থেকে তার পরিবারের লোকজন এসে তাকে খাবার দিয়ে যেত। কিন্তু শনিবার দুপুর থেকেই কেউ আর হাসপাতালে আসেনি। এ অবস্থায় তিনি এদিন রাতেই মারা যান। হাসপাতালের নার্সদের বরাত দিয়ে কাউন্সিলর শকু আরো বলেন, ওই নারীর কাছ থেকে একটি ফোন নম্বর নিয়ে হাসপাতাল থেকে শনিবার দুপুরের পরে বেশ কয়েকবার ফোন করা হয়েছিল। কিন্তু অপর প্রান্ত থেকে বিষয়টাকে এড়িয়ে গিয়ে উল্টো বকাবাজি করে ফোন রেখে দেন। পরে আর যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। শওকত হাসেম বলেন, আজ সদর থানা থেকে আমাকে বিষয়টি জানালে সরেজমিনে উপস্থিত হই এবং সিটি করপোরেশন মেয়রের সঙ্গে কথা বলে মরদেহটি আমি গ্রহণ করি। পরে সিটি করপোরেশন থেকে গাড়ি এসে ওই নারীর মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় মাসদাইর কবরস্থানে। বিকেলের দিকে সেখানেই তাকে দাফন করা হয়।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment