ফেসবুক থেকে জাহিরুলের ছবি ব্যবহার করে অপপ্রচার, থানায় অভিযোগ

নারায়ণগন্জ নিউজ ২৪ ডট কম : ফতুল্লার মধ্য শিয়াচর এলাকার জাহিরুল ইসলামের ফেসবুক আইডি থেকে ছবি সংগ্রহ করে ‘প্রদীপ চন্দ্র বর্মণ’ নামীয় একটি ফেসবুক আইডি থেকে আমার ব্যক্তিগত ছবি ব্যবহার করে অপপ্রচার করা হচ্ছে। এ ঘটনায় জাহিরুল ইসলাম বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগের বরাত দিয়ে জাহিরুল ইসলাম জানান, আমি গত ৫ বছর যাবত বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়ন ও সমাজকল্যাণ ধর্মীয় কাজকর্ম করিয়া আসিতেছি। প্রদীপ চন্দ্র বর্মণ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হতে আমার উক্ত সমাজকল্যাণ ধর্মীয় কার্যক্রমের কথাবার্তা জানতে পারিয়া আনুমানিক দেড় মাস পূর্বে আমাকে তার ‘সমাজের জন্য আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা’ নামীয় সংঘে যোগদান করার জন্য ফতুল্লা থানাধীন আর্মি মার্কেট এলাকায় এসে সরাসরি প্রস্তাব প্রদান করে। আর্মি মার্কেট এলাকায় তখন আমি ব্যক্তিগতভাবে সাধারণ মানুষের মাঝে মাস্ক বিতরণ করছিলাম। তখন আমি প্রদীপ চন্দ্র বর্মণকে তার সংঘের বাংলাদেশ সরকার সংশ্লিষ্ট অনুমোদনের যাবতীয় কাগজপত্রাদী দেখাইতে বলি। কিন্তু প্রদীপ চন্দ্র বর্মণ বিভিন্ন রকম টালবাহানা স্বরূপ কথাবার্তা বলে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। সেই থেকে অদ্যবধি পর্যন্ত তার উক্ত সংস্থার বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের অনুমোদনের কোন কাগজপত্রাদী দেখাতে পারে নাই।

জাহিরুল ইসলাম আরো জানান, পরবর্তীতে আমি গত ০১ জুন দুপুরে আনুমানিক ২টার সময় আমার নিজের ফেসবুক মনিটরিংকালে আমি দেখি যে, ‘প্রদীপ চন্দ্র বর্মণ’ নামীয় ফেসবুক আইডি থেকে আমার ছবি ব্যবহার করে তার উল্লেখিত ‘সমাজের জন্য আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা’ ও ‘তালাশ নিউজ টিভি ৭৯’ এর সদস্য হিসেবে কার্ড তৈরি করে আপলোড করেছে। আদৌতে আমি তার সাথে কোন সদস্য কিংবা সংস্থা/টিভির সাথে দলভূক্ত হওয়ার কোন কথাবার্তা বলি নাই বা দালিলিক কোন চুক্তি বা স্বাক্ষরও হয় নাই।

পরবর্তীতে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা/টিভির নিউজের মাধ্যমে জানতে পারি যে, প্রদীপ চন্দ্র বর্মণের বর্ণনাকৃত সংস্থা ও টিভি সম্পূর্ণ ভূয়া, মিথ্যা ও বানোয়াট।

এহেন অবস্থায় আমার ধারণা হইতেছে যে, প্রদীপ চন্দ্র বর্মণ আমাকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার কু-মানসে এবং আমার সম্মানহানী করার অসৎ উদ্দেশ্যে আমার ফেসবুক আইডি থেকে আমার নিজের ছবি সংগ্রহ করে তার নিজের ‘প্রদীপ চন্দ্র বর্মণ’ নামীয় ফেসবুক আইডি থেকে আমার নামে তার সংস্থার দলভূক্ত হিসেবে একটি সদস্য কার্ড তৈরি করে আপলোড করে। আসলে আমি তার দলভূক্ত লোক বা সদস্য নই বা ছিলাম না।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment