বুড়িগঙ্গা নদী থেকে কিশোরী বধুর লাশ উদ্ধার

নারায়ণগন্জ নিউজ ২৪ ডট কম : রাজধানীর যাত্রাবাড়ি মিরহাজীরবাগ এলাকা থেকে নিখোঁজের ৩দিন পর বুড়িগঙ্গা নদীর তালতলা তীরবর্তী স্থান থেকে মালা আক্তার নামে এক কিশোরী বধূর ভাসমান লাশ উদ্ধার করেছে কোষ্টগার্ড।

শনিবার (১৪ আগস্ট) সকাল সাড়ে ১০টায় ফতুল্লার তালতলা এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদী থেকে লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহত মালা আক্তার(১৭) যাত্রাবাড়ি মিরহারাজী বাগ এলাকার নূর নবীর একমাত্র মেয়ে।
পাগলা কোষ্টগার্ড সদস্যরা জানান, নিহতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। নিহতের পরিবারের অনুরোধে লাশ উদ্ধার করে নৌ পুলিশের কাছে হস্থান্তর করা হয়েছে।

নিহতের চাচা নুরুজ্জামান জানান, মালা স্থানীয় একটি স্কুলে ৯ম শ্রেনীতে পড়তো। এক বছর পূর্বে মিরহাজারী বাগ এলাকার ইঞ্জিনিয়ার গলির মতিউর রহমান মোল্লার ছেলে মজিবুর রহমানের(২০) সঙ্গে প্রেম ভালোবাসায় জড়িয়ে পড়ে মালা ঘর ছেড়ে পালিয়ে বিয়ে করে। বিয়ের পর থেকে তাদের সংসারে অশান্তি চলছে। কারনে অকারনে প্রায় সময় মালার উপর অমানুষিক নির্যাতন চালাতো মজিবুর। এতে সহ্য করতে না পেরে মালা বাবার বাড়ি চলে আসতো। পরে মজিবুর এসে জোর করে তার বাড়িতে মালাকে নিয়ে যেতো। গত ১১ আগস্টও মালাকে মারধর করলে সে বাবার বাড়ি চলে আসে।

তিনি আরো জানান,ওইদিনই (১১ আগস্ট) সন্ধ্যার পর মজিবুর এসে মালাকে তার বাবার বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর থেকে মালা নিখোঁজ ছিলো। তখন সন্দেহ হলে মজিবুরকে আটক করে স্থানীয় থানা পুলিশে হস্থান্তর করে। আটকের পর মজিবুর জানিয়েছে তার সামনে থেকে মালা পোস্তগোলা ব্রীজ থেকে নদীতে লাফিয়ে পড়েছে। কিন্তু মালার লাশে আঘাতের চিহ্ন বলছে তাকে নির্যাতন করে হত্যার পর লাশ নদীতে ফেলে দিয়েছে। এবিষয়ে আটক মজিবুরের বিরুদ্ধে মামলা করবো।

এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার ওসি(তদন্ত) তারিকুল ইসলাম জানান,সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে থানা পুলিশ গিয়েছিলো।লাশটি নদীতে পাওয়া গেছে। নদীর বিষয়টি নৌ পুলিশের আওতাধীন তাই বিষয়টি নৌ পুলিশ(পাগলা ইউনিট) তদন্ত করছে বলে তিনি জানান।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment