তাৎক্ষণিক নিবন্ধন করে তাৎক্ষণিক টিকা নিচ্ছেন রিকশাচালক, দিনমজুর ও ভাসমানরা

নারায়ণগন্জ নিউজ ২৪ ডট কমঃ নারায়ণগঞ্জে  তাৎক্ষণিক নিবন্ধন করে সেখানেই করোনা টিকা দিচ্ছেন রিকশাচালক, দিনমজুর, হকার ও ভাসমান শ্রেণির নাগরিকরা। ব্যতিক্রমধর্মী এই উদ্যোগ নিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ সদ্য যোগদানকৃত জেলা প্রশাসক মঞ্জুরুল হাফিজ। যোগদানের পর নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের প্রথম অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন নবনির্বাচিত মেয়র সেলিনা হায়াত আইভী।

আজ শনিবার সকাল ১০টায় নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাড়া গিয়ে দেখা যায়, শত শত রিকশাচালক রিকশা রেখে করোনা টিকা গ্রহণ করছেন। এর মধ্যে রয়েছে দিনমজুর, ভ্যানচালক, হকারসহ রেলস্টেশনের ভাসমানরাও।

টিকা নিয়ে শহরের রিকশা চালক আবুল মিয়া জানান, টিকা দিতে গেলে কিয়ের জানি মোবাইলে কি করত অয়। এডি পারিও না তাই করোনা টিকা আর দিতে পারি নাই। আজকা দেখলাম টিকা দেয়া স্যারেরা আমগো নাম নিয়া নিজেরাই মোবাইল দিয়া সব কইরা দিয়া আবার লগে লগে টিকাও দিয়া দিল, আবার পরে কবে টিকা দিমু তাও জানায় দিছে। খুবই ভালো অইছে। আমগো গরীব মানুষগুলা এহন এমনে সব কইরা দিলে টিকাডা দেয়া সহজ অইব।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শামীম বেপারী বলেন, নবাগত ডিসি স্যারের উদ্যোগে এই ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজন করা হয়েছে। তার নির্দেশনা ছিল সকল শ্রেণি যেন টিকার আওতায় আসে।

বিশেষ করে যেসব নাগরিকগণ করোনা টিকা অ্যাপস রেজিস্ট্রেশন, অনলাইন, কম্পিউটার ও ইন্টারনেট ব্যবহারে পিছিয়ে রয়েছে – যেমন রিকশাচালক, দিনমজুর, হকার, ভাসমান তাদের জন্য এই আয়োজন।

বিষয়টি জানতে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক জরুল হাফিজের সাথে মোবাইলে আলাপকালে তিনি জানান, আমাদের প্রধানমন্ত্রী চান ধনী-গরীব সকল শ্রেণি যেন টিকার আওতায় আসে। সকল নাগরিক যেন নিরাপদ থাকতে পারে, সেই চেষ্টা করছি।

কারণ এখনো আমাদের দেশের অনেক নাগরিক আধুনিক প্রযুক্তি, করোনা নিবন্ধন অ্যাপস ব্যবহার জানে না। তাই তারা অনেকে চাইলেও করোনা টিকা দিতে পারছে না।

আর আমরা যদি এভাবে তাৎক্ষণিক করোনা টিকার নিবন্ধন করে টিকা দিয়ে দেই তাহলে তারাও টিকা দিতে আসবে। এই চেষ্টা আমরা অব্যাহত রাখবো।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment